নাসুল্লাহ: ‘তাকফিরি সন্ত্রাসীদের হাত থেকে লেবাননকে বাঁচিয়েছে হিজবুল্লাহ’

17- বাংলা (Bengali)

লেবাননের ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহ বলেছে, সংগঠনটি সিরিয়ার তাকফিরি বিদ্রোহীদের হাত থেকে লেবাননের জনগণকে রক্ষা করেছে। এটি বলেছে, হিজবুল্লাহ যদি সিরিয়া যুদ্ধে না জড়াত তাহলে তাকফিরি সন্ত্রাসীরা লেবাননের সব মানুষকে হত্যা করত।

হিজবুল্লাহ মহাসচিব সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ শনিবার এক টেলিভিশন ভাষণে এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, "তাকফিরি সন্ত্রাসীরা যদি সিরিয়ায় বিজয়ী হতো তাহলে আমাদের সবাইকে কচুকাটা করত। তারা শুধু হিজবুল্লাহ বা প্রতিরোধ আন্দোলনকে নয় বরং লেবাননের  প্রতিটি নাগরিককে হত্যা করত। কিন্তু এখন সিরিয়ার সন্ত্রাসীরা নির্মূল হওয়ার পথে রয়েছে। আরব দেশগুলোকেও আর এ নিয়ে প্রকাশ্যে উচ্চবাচ্য করতে দেখা যায় না।"

সাইয়্যেদ নাসরুল্লাহ বলেন, সিরিয়ায় সহিংসতা শুরু হওয়ার পর দেড় বছর পর্যন্ত হিজবুল্লাহ এ সংঘাতে জড়ায়নি। কিন্তু সন্ত্রাসীরা যখন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মাদ (সা.)-এর প্রিয় নাতনি হযরত জয়নাব সালামুল্লাহি আলাইহার মাজারের কয়েক মিটারের মধ্যে পৌঁছে যায় তখন হিজবুল্লাহ সেখানে হস্তক্ষেপ করে। তিনি বলেন, গোটা মুসলিম বিশ্বে শিয়া-সুন্নি নির্বিশেষ সবার কাছে হযরত জয়নাবের মাজার সম্মানিত স্থান হিসেবে পরিচিত; কিন্তু তাকফিরি বিদ্রোহীরা সেটিকে গুঁড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। এ অবস্থায় ওই মাজার রক্ষার উদ্যোগ নেয় হিজবুল্লাহ।

সিরিয়া যুদ্ধে জড়ানোর ব্যাপারে তুরস্ক যে ভুয়া দাবি উত্থাপন করেছে সাইয়্যেদ হাসান নাসরুল্লাহ তার সমালোচনা করেন। তুরস্কের ওসমানিয় সাম্রাজ্যের প্রতিষ্ঠাতার পিতামহ সুলাইমান শাহ’র মাজার রক্ষার জন্য আঙ্কারা সিরিয়া যুদ্ধে জড়িয়েছে বলে দাবি করে। হিজবুল্লাহ মহাসচিব বলেন, বিশ্বের কোনো মুসলমান সুলাইমান শাহকে চেনে বলে তিনি মনে করেন না।

হিজবুল্লাহ মহাসচিব বলেন, সিরিয়ায় সংঘর্ষ শুরু হওয়ার পর তার সংগঠন রাজনৈতিক সংলাপের মাধ্যমে তা বন্ধ করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু আরব লীগ সামরিক উপায়ে এ সংকট সমাধানের উদ্যোগ নেয়ায় হিজবুল্লাহর সে প্রচেষ্টা ভেস্তে যায়। তিনি বলেন, আরব সরকারগুলো সন্ত্রাসীদের অর্থ ও অস্ত্র দিয়ে সিরিয়ায় পাঠায় প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সরকারকে উৎখাতের জন্য। কিন্তু এতদিনে কোনো  কোনো আরব রাষ্ট্রনায়ক একথা বলে পিছু হটার চেষ্টা করছেন যে, সিরিয়া সংঘাত শেষ হলে গেলে এসব সন্ত্রাসী তাদের দেশে সন্ত্রাসবাদ শুরু করবে। অথচ হিজবুল্লাহ প্রথমদিন থেকেই আরব দেশগুলোকে এ ব্যাপারে সতর্ক করে দিয়েছিল।#

http://bangla.irib.ir/2010-04-21-08-29-09/2010-04-21-08-29-54/item/60279-%E2%80%98%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%AB%E0%A6%BF%E0%A6%B0%E0%A6%BF-%E0%A6%B8%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%B8%E0%A7%80%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%A4-%E0%A6%A5%E0%A7%87%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A6%A8%E0%A6%95%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%81%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A7%9F%E0%A7%87%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%B9%E0%A6%BF%E0%A6%9C%E0%A6%AC%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A7%8D%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%B9%E2%80%99

Write a comment

Comments: 0